মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৬ অক্টোবর ২০১৬

ছেলেমেয়েদের শিক্ষা ও বিবাহ বীমা (লাভবিহীন) প্ল্যান-৪৭

এই বীমা পরিকল্পনার মাধ্যমে অভিভাবকগণ তাঁদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ গঠনের পথ সুগম করে থাকেন। এই পরিকল্পনা অন্তর্ভুক্ত বীমা সন্তানের উচ্চশিক্ষাজনিত বা বিবাহকালীন আর্থিক দুশ্চিন্তা থেকে তাঁদেরকে মুক্ত রাখে। কারণ, বীমাগ্রাহক তাদের উচ্চশিক্ষা, বিবাহ বা অন্য নানাবিধ বিশেষ ভবিষ্যৎ প্রয়োজনের সময় অথবা কালের দিকে লক্ষ্য রেখে উপযুক্ত মেয়াদের এই বীম ক্রয় করলে, এ সমস্ত প্রয়োজনের সম্ভাব্য ব্যয় বীমার মাধ্যমে পেতে পারেন। এই পরিকল্পনায় বীমাকৃত অর্থ কেবল বীমার মেয়াদ অতিক্রন্ত হওয়ার পরেই পাওয়া যায়। তবে বীমাপ্রস্তাবক বা বীমাগ্রাহকের মেয়াদকালীন অকাল মৃত্যুতে বীমার অবশিষ্ট মেয়াদের জন্য কোন প্রিমিয়াম দিতে হয় না। যে সন্তানের জন্য এই জাতীয় বীমাপত্র দেয়া হয়, বীমার মেয়াদকালে তার মৃত্যু ঘটলে প্রথম বছরের প্রিমিয়াম ছাড়া পরবর্তী বছরে প্রদত্ত সকল প্রিমিয়াম শতকরা ২ টাকা হার সুদে ফেরৎ দেয়া হয়, অন্যথায় বীমা অন্য কোন সন্তানের উপকারার্থে চালু রাখা যেতে পারে। সন্তানের স্বার্থ সংরক্ষণকল্পে মেয়াদ শেষে বীমাপত্রে উলেখিত মনোনীত সন্তানকেই বীমার অর্থ দেয়া হয়। বীমার সমস্ত অর্থ এককালীন প্রদানের জন্য এই জাতীয় বীমার উপরে কোন সমর্পণ (Surrender) মূল্য বা ঋণ দেয়া হয় না। এই বীমার উপরে দেয় প্রিমিয়াম আয়কর হতে রেয়াত পায়। এই বীমার সঙ্গে কোন অতিরিক্ত সুবিধার বীমা (Supplementary benefit) গ্রহণ করা যায় না।


Share with :
Facebook Facebook