মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৫ অক্টোবর ২০১৬

দ্বৈত-নিরাপত্তা মেয়াদী বীমা (লাভসহ) প্ল্যান-১০

কর্মজীবনের প্রারম্ভিক দিনগুলিতে একজন মানুসের আয় তেমন বেশী হয় না। ফলে পরিবারের নিরাপত্তার জন্যে যেমন মোটা অংকের সঞ্চয় করা যায় না, তেমনি ইচ্ছা থাকলেও পর্যাপ্ত জীবন বীমার ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। এ সময়ে একমাত্র রোজগারী ব্যক্তির অকাল মৃত্যু ঘটলে যে কোনো পরিবারেই বিপর্যয় আসতে বাধ্য। জনগণের এই গভীর সমস্যার সমাধানে জীবন বীমাকর্পোরেশন প্রবর্তন করেছে “দ্বৈত-নিরাপত্তা মেয়াদী বীমা “পরিকল্পনা”। এর মাধ্যমে স্বল্পতম ব্যয়ে সর্বোচ্চ পরিমাণ আর্থিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা সম্ভবপর।

বিশেষত্ব সমূহ :

(ক) দ্বৈত-নিরাপত্তা পরিকল্পনায় বীমা গ্রাহকের অকাল মৃত্যুতে মূল বীমার দ্বিগুণ অর্থ প্রদান করা হয়।

(খ) মৃত্যুজনিত সুবিধা হিসেবে নামমাত্র অতিরিক্ত প্রিমিয়ামের মূল বীমার সমপরিমাণের অর্থ প্রদানের ব্যবস্থা থাকায় এ পরিকল্পনা স্বল্পতম ব্যয়ে বীমাগ্রাহকের মৃত্যু-ঝুঁকি গ্রহণের নিশ্চয়তা দেয়।

(গ) তেমন কোন বাড়তি প্রিমিয়াম না দিয়ে যারা অকাল মৃত্যুর মোকাবেলায় পরিবারের জন্যে মোট অংকের অর্থের বন্দোবস্ত করে রাখতে চান, এই বীমা তাদের জন্যে অত্যন্ত উপযোগী। সাধারণতঃ সময়ের অতিμান্তির সাথে সাথে বীমাগ্রাহকের আয় বৃদ্ধি পায় এবং সেই সাথে শিশু পুত্র-কন্যাদের জন্যে সম্ভাব্য দায়ের পরিমাণও হ্রাস পেতে থাকে। এর ফলে এ পরিকল্পনায় পরবর্তীকালে ইচ্ছা করলে তার জীবন বীমা চুক্তি পরিবর্তন করে নিতে পারেন। কেবলমাত্র মৃত্যুর কারণে দ্বিগুণ অর্থ প্রাপ্তি-ব্যবস্থার সাথে সাথে বীমার মেয়াদ পুর্তি হলেও যাতে ঐ অতিরিক্ত অর্থ পাওয়া যায়, সে ব্যবস্থাটিও বীমাগ্রহক করে নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে স্বভাবতঃই প্রিমিয়ামের হার বর্ধিত হবে, তবে নতুন করে কোন ডাক্তারী পরীক্ষা করানোর প্রয়োজন হবে না। বীমার মেয়াদ পূর্তির অন্ততঃ দশ বছর আগে চুক্তি পরিবর্তনের এ সুবিধা গ্রহণ করা যায়।

(ঘ) দ্বৈত-নিরাপত্তা মেয়াদী বীমা ১০ বছর, ১৫ বছর, ২০ বছর কিংবা ২৫ বছরের মেয়াদে গ্রহণ করা যায়।

(ঙ) মূল বীমা অংকের উপর বোনাস দেয়া হয় এবং আয়কর রেয়াৎসহ সমর্পণ মূল্য পরিশোধিত মূল্য ইত্যাদির মতো সাধারণ সকল সুবিধা এই বীমাতেও পাওয়া যায়। (চ) কর্মজীবনের প্রারম্ভিক বছরগুলিতে এই বীমা কেবলমাত্র উপযুক্ত নিরাপত্তাই বিধান করেনা, সেই সাথে জীবনের পরবর্তী দিনগুলির জন্যে পর্যাপ্ত আর্থিক সুবিধাও প্রদান করে।

(ছ) এই বীমার সঙ্গে কোন অতিরিক্ত সুবিধার বীমা (Supplementary benefit)) গ্রহণ করা যায় না।

দৃষ্টান্ত ঃ

মনে করুন, ত্রিশ বছর বয়সে করিম সাহেব কুড়ি বছরের মেয়াদে একটি ২৫,০০০.০০ টাকার দ্বৈত-নিরাপত্তা মেয়াদী বীমা গ্রহণ করলেন। তিনি প্রতিবছর প্রিমিয়াম হিসাবে দেবেন ৬১.৩০ টাকা-(১.৫০ টাকা + ১.০০ টাকা) * ২৫ অথবা ১,৪৭০.০০ টাকা। এবং সুবিধা পাবেন নিমÍরূপ :

বীমার মেয়াদ পূর্তি হলে :

২৫,০০০.০০ টাকা + অর্জিত বোনাস।

অকাল মৃত্যুতে:

খোদা না করুন, যদি পলিসি গ্রহণের বছরেই করিম সাহেবের মৃত্যু ঘটে তাহলেও তার মনোনীতককে দেয়া হবে ৫০,০০০.০০ টাকা। মাত্র ১,৪৭০.০০ টাকার একটি বার্ষিক প্রিমিয়ামের বদলে এভাবে করিম সাহেব তার প্রিয় পরিবার পরিজনের জন্যে ৫০,০০০.০০ টাকার আর্থিক নিরাপত্তা করলেন। অন্য কোন পরিকল্পনাই এতো স্বল্প মূল্যে এতো বেশি নিরাপত্তা দিতে পারবে না।

বয়স সীমা:

স্বাভাবিক জীবনের জন্যে বীমা গ্রহণ কালীন সময় সর্বোচ্চ ৫৫ বছর। অবমান জীবনের ক্ষেত্রে এই সীমা ৪০ বছর। মেয়াদ পূর্তিকালীন সর্বোচ্চ বয়স হলো ৬৫ বছর।


Share with :
Facebook Facebook